সুবহানআল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ, মাশাল্লাহ, ইনশাল্লাহ অর্থ কি?

সুবহানআল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ, মাশাল্লাহ, ইনশাল্লাহ অর্থ কি?

সুবহানআল্লাহ শব্দের অর্থ কি?

সুবহানাল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ হচ্ছে সকল পবিত্রতা আল্লাহর। সুবহানাল্লাহ আল্লাহ নিজেই তাঁর জন্য পছন্দ করেছেন । সুবাহানাল্লাহ শব্দটি আল্লাহর অনেক পছন্দ। সুবহানাল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ যদি আপনি একটু খেয়াল করেন তাহলে দকেহতে পাবেন সুবাহানাল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ এর মাধ্যমে আল্লাহর পবিত্রতা প্রকাশ পায়। সুবাহানাল্লাহ বলে জিকির করলে আল্লাহ অনেক খুশি হন। সুবহানাল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ পবিত্রতা প্রকাশ ছাড়াও আরোসু সুন্দর একটি অর্থ রয়েছে। সুবহানাল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ হলো লোকেরা আল্লাহ সম্পর্কে যে ভুল বক্তব্য দেয় আল্লাহ তাঁর উর্দ্ধে।  সুবহানাল্লাহ শব্দকে আরো ভালো ভাবে যদি অনুবাদ করা যায় তাহলে সুবহানাল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ হবে আল্লাহতায়ালার যেকোন অপূর্ণতা মুক্তি পাক।

আলহামদুলিল্লাহ শব্দের অর্থ কি?

আলহামদুলিল্লাহ আরবি শব্দ। যার আভিধানীক শব্দ হলো সমস্ত প্রশংসা মহান আল্লাহর। কোন ব্যাক্তি যখন কোন কাজে সফল হন, তিনি মহান আল্লাহ-তায়লার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে এ ধরণের বাক্য ব্যাবহার করেন। যা মহান আল্লাহতায়লা খুবই পছন্দ করেন।‘আলহামদুলিল্লাহ’ শব্দের মধ্যে আছে ‘হামদ’ শব্দটি। আমরা আল্লাহর গূণকীর্তি করে হামদ গাই। ‘হামদ’ অর্থ ‘প্রশংসা’। ভালো কোনো খবর শুনলে আলহামদুলিল্লাহ বলা সুন্নত। কোরআন পড়া শুরুই করতে হয় ‘আলহামদুলিল্লাহ’ বলে। এ ছাড়া কোরআনের অন্যান্য প্রায় সব সুরাই যে এই বাক্য দিয়ে শুরু করতে হয়, তা থেকেই এর তাৎপর্যের প্রমাণ পাওয়া যায়।

মহানবী (সা.) বলেছেন, ‘আল্লাহর কাছে চারটি বাক্য প্রিয়, সুবহানাল্লাহ, আলহামদুলিল্লাহ, লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ, আল্লাহু আকবার।’ (মুসলিম)

আরেকটি হাদিসে বলা হয়েছে, ‘আল্লাহ সবচেয়ে বেশি নিজের প্রশংসা পছন্দ করেন, এ জন্য তিনি নিজের প্রশংসা করেছেন এবং আমাদেরও তাঁর প্রশংসার নির্দেশ দিয়েছেন।’ (বুখারি) মহানবী (সা.) আরও বলেছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ আমলের পাল্লা পূর্ণ করে দেয়। আর সুবহানাল্লাহ ও আলহামদুলিল্লাহ শব্দ দুটি আসমান ও জমিনের খালি জায়গা পূর্ণ করে দেয়।’ (মুসলিম)

মাশা-আল্লাহ শব্দের অর্থ কি?

মাশাআল্লাহর আক্ষরিক অর্থ হলো “আল্লাহ যা ইচ্ছা করেছেন”, “আল্লাহ যা ইচ্ছা করেছেন তা ঘটেছে” অর্থে; এটি অতীতকাল ব্যবহার করে, কিছু ভাল হয়েছে বলার জন্য ব্যবহৃত হয়। ইনশাল্লাহ এর আক্ষরিক অর্থ “যদি আল্লাহ ইচ্ছা করেন”; এটিও একইভাবে ব্যবহৃত হয় তবে তা ভবিষ্যতের ঘটনাকে নির্দেশ করে।

ইনশাআল্লাহ অর্থ কি?

ইনশাআল্লাহ অর্থ কি? অনেকেই জানেন না। ইনশাল্লাহ নাকি ইনশাআল্লাহ এই নিয়েও দ্বিমত আছে অনেকের। কেউ কেউ মনে করেন ইনশাল্লাহ সঠিক আবার কারো কারো কাছে ইনশাআল্লাহ ই সঠিক। ইনশাল্লাহ সঠিক শব্দ নয়, ইনশাআল্লাহ ই প্রকৃত সঠিক শব্দ।

আল্লাহর হুকুম ছাড়া কিছুই হয় না

কোরআন মাজীদ বলে, পৃথিবী, আকাশ এবং সমগ্র জগৎসংসার শুধুমাত্র আল্লাহ তায়ালার হুকুমের আওতাভুক্ত। সবকিছুর সৃষ্টিকর্তা ও রিজিকদাতা যেমন আল্লাহ, তেমনিভাবে সবার ওপর শুধু তারই হুকুম চলে। বলা হয়েছে, ‘লাহুল খালকু ওয়াল আমরু’। অর্থাৎ, সৃষ্টিও তারই এবং হুকুম তারই’ (সূরা আরাফ : আয়াত-৫৪)।

ইনশাল্লাহ্‌ অর্থˌin-sä-ˈlä : যদি আল্লাহ চান : আল্লাহ ইচ্ছা করেন। তবে অনেক ক্ষেত্রে ইনশাআল্লাহর ভুল কথায় ব্যবহার করি। যেমনঃ কোন অবৈধ কার্যকলাপ কিংবা যেটি আল্লাহ’র পছন্দ নয় সেখানেও সাধু সাজতে এই শব্দটি ব্যবহার করেন অনেকে। যা ঘোরতর গুণাহ। অনেকেই ওয়াদা করে এই কথাটি বলে, আল্লাহর শপথ! আমি অবশ্যই ইনশাআল্লাহ এই কাজটি করবো” তারপর সে কাজটি করলো না। সে শপথ ভঙ্গকারী হিসেবে গণ্য হলো। আবার অনেকেই একটি অবৈধ কার্যকলাপে এই শব্দটি ব্যাবহার করেন। যেমন কেউ ঘুষ নেওয়ার সময় যদি বলেন, “ইনশাআল্লাহ আপনার কাজটি ভালোমতো হয়ে যাব” তাহলে সেই ক্ষেত্রে মহান আল্লাহতায়লা সেই ব্যাক্তির উপর নারাজ হন। তাই আমাদের সকলের উচিত “ইনশা-আল্লাহ” শব্দটির মতো একটি গুরুত্বপুর্ণ শব্দ জেনেশুনে বলা উচিত। অবশ্যই এই শব্দটি কোন ব্যাক্তি বললে আল্লাহ তায়লা খুশি হন। তবে সেই ব্যাক্তির উদ্দেশ্য থাকতে হবে ভালো ও সৎ। মহান আল্লাহ-তায়লা আমাদের সকলকে বোঝার তৌফিক দান করুন।

মহান আল্লাহ বান্দার প্রতি অতি দয়াবান। তিনি সর্বদা বান্দার জন্য সহজ চান, কঠিন চান না। তিনি কারও উপর যুলুমকারী নন। সর্বদা বান্দার কল্যাণ চান। তিনি চান বান্দার সমস্ত পাপ ক্ষমা করে তাকে দ্বীনের সঠিক পথে পরিচালিত করতে। মহান আল্লাহ বলেন, يُرِيدُ اللهُ لِيُبَيِّنَ لَكُمْ وَيَهْدِيَكُمْ سُنَنَ الَّذِينَ مِنْ قَبْلِكُمْ وَيَتُوبَ عَلَيْكُمْ وَاللهُ عَلِيمٌ حَكِيمٌ، ‘আল্লাহ তোমাদের জন্য (হালাল-হারাম) ব্যাখ্যা করে দিতে চান ও তোমাদের পূর্ববর্তীদের (সুন্দর) রীতি সমূহের প্রতি তোমাদের পথ প্রদর্শন করতে চান এবং তোমাদেরকে ক্ষমা করতে চান। আল্লাহ সর্বজ্ঞ ও প্রজ্ঞাময়’ (নিসা ৪/২৬)

“বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। কেউ যদি অনুমতি ছাড়া লেখা কপি করে ফেসবুক কিংবা অন্য কোন প্লাটফর্মে প্রকাশ করেন, এবং সেই লেখা নিজের বলে চালিয়ে দেন তাহলে সেই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য থাকবে
ছাইলিপি ম্যাগাজিন।”

সম্পর্কিত বিভাগ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Facebook
WhatsApp
Telegram
আগমনীর শুভ্রতায়

আগমনীর শুভ্রতায়

কমল কুজুর শরতের আকাশে শুভ্র মেঘরাশি চলে ভেসে দূর অজানায়, যেতে যেতে কাশফুলের কোমলতায় রাঙিয়ে দিয়ে যায় হৃদয় তোমার; রাঙে সূর্য, রাঙে চন্দ্র – হেসে ...

Don’t Share This Politics Insider Secret

Cursus iaculis etiam in In nullam donec sem sed consequat scelerisque nibh amet, massa egestas risus, gravida vel amet, imperdiet volutpat rutrum sociis quis velit, ...
জীবন বন্দী সময়ের ফেরে 

জীবন বন্দী সময়ের ফেরে 

গোলাম কবির    প্রতিদিনই পৃথিবীর মতো একটু একটু করে  ক্ষয়ে ক্ষয়ে যাচ্ছি, বড়ো হচ্ছি না তো!   কেবলই ছোটো হচ্ছি ফুলের কাছে,  পাখির কাছে, নদীর কাছে, ...
রূপ কথার বিয়ে-সাফিকুল আলাম

রূপ কথার বিয়ে-সাফিকুল আলাম

|সাফিকুল আলাম   বিয়ের আয়েজন করা হোক চাঁদনি রাতে। নক্ষত্ররা বরযাত্রী সাজবে। তোমার আর আমার মাঝে, “এক আল্লাহ্ই যথেষ্ট হবে সাক্ষী হিসাবে।”   আমাদের বিয়ের ...
শীতের হাওয়া- ফেরদৌসী খানম রীনা

শীতের হাওয়া- ফেরদৌসী খানম রীনা

 ফেরদৌসী খানম রীনা  শীতের হাওয়া বইছে কয়াশায় ঢাকা ভোর, অলসতায় ঘুম ভেঙে কেউ খোলেনা দোর। শীতের দিনে রসের পিঠা খেতে লাগে ভালো, শীত এলেই নানান পিঠা ...
বিস্মৃতির আড়ালে

বিস্মৃতির আড়ালে

 সুতপা ব‍্যানার্জী(রায়) তিলোত্তমা অনেকক্ষণ ধরে দাঁড়িয়ে আছে লেভেল ক্রসিংয়ের খুঁটি ধরে। গাড়ি চলে যেতেও ওর মধ্যে এগোনোর কোন লক্ষণ দেখা গেল না। ওর মনের মধ্যে ...