নীল বেদনা

আশিক মাহমুদ রিয়াদ

ঐ নীল চোখা বেদনার মধ্যে
একধরণের মিশ্র সুখ আছে!
তুমি জানো সেসব কথা।
শেষবার যখন হাত ধরেছিলে
তখন আমার নাকের নিচে
গোফের সরু রেখা চলেছে…!

বৃষ্টির আগে বাতাসের স্নিগ্ধ গন্ধ বয়।
তোমার পদচিহ্ন আমার বুকে পড়ে রয়
এরপর কত ঘনঘটা বর্ষা এলোগেলো,
বাতাস জুড়ে কয় ঘটনা রটে গেলো।

দাঁড়ি কাটতে গিয়ে গাল কেঁটে গেলো,
আনমনা ভাবতে গিয়ে
মাছের কাঁটা গলায় বিধলো বারকয়েক।
দুঃস্বপ্নে ভাঙলো বিকেলের ঘুম।
হৃদয় হাঁসফাস, চোখ জুড়ে স্বপ্ন ঝুম ।

আমি ছটফট করে তোমায় খুঁজতে লাগলাম।

জানলা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে রাস্তায়,
কখনো আকাশের দিকে তাকিয়ে।
কখনো শেষরাতের সিগারেটের ব্যথায়,
তোমার নীল চোখা বেদনার ,
নীলছাপ কষ্টের, যাতনার ,
দুঃখ চেপে রাখা রাতের আঁধার ,
হিসেব জমা আছে কবরখানায় ।

আমি জানি তুমি আসবে,
শরৎ শেষে হেমন্তের কুয়াশা মাখা দিনে
আমাদের দেখা হবে।
অথবা মাঘ পেরিয়ে-
ফাল্গুনের পাতা ঝরার দিনে,
যেসব দিনে গাছে গাছে ফুল ফোঁটে।
পুরুষের শরীরে তৈরী হয় নতুন…প্রেমরস!

আধখাওয়া সিগারেট, পিন ভাঙা কলম
সবকিছু খবর রাখে তোমায়!
আমি বড্ড অসহায় অপরাজিতা…
আমি অসহায় একা, রোডলাইটের মতো
আমি অসহায় একা, এক কাপ চায়ের ক্ষত!
আমি অসহায় একা, শেষরাতের বাদলা জ্বরে
আমি বড় অসহায় একা, ভেজা কাক হয়ে!

এই লেখাটি শেয়ার করুন

সম্পাদকের কথা

লেখালিখি ও সৃজনশীল সাহিত্য রচনার চেষ্টা খুবই সহজাত এবং আবেগের দুর্নিবার আকর্ষণ নিজের গভীরে কাজ করে। পাশাপাশি সম্পাদনা ও প্রকাশনার জন্য বিশেষ তাগিদে অনুভব করি। সেই প্রেরণায় ছাইলিপির সম্পাদনার কাজে মনোনিবেশ এবং ছাইলিপির পথচলা। ছাইলিপিতে লিখেছেন, লিখছেন অনেকেই। তাদের প্রতি আমার অশেষ কৃতজ্ঞতা। এই ওয়েবসাইটের প্রতিটি লেখা মূল্যবান। সেই মূল্যবান লেখাকে সংরক্ষণ করতে লেখকদের কাছে আমরা দায়বদ্ধ। কোন লেখার মধ্যে বানান বিভ্রাট থাকলে সেটির জন্য আন্তরিক দুঃখ প্রকাশ করছি। ছাইলিপি সম্পর্কিত যে কোন ধরনের মতামত, সমালোচনা জানাতে পারেন আমাদেরকে । ছাইলিপির সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ ।