দুর্গতিনাশিনী 

অমিত মজুমদার 

নগর এখন শহর থেকেও অনেক দূর
বিপদসীমার আবেগপ্রবণ ফর্মুলায়
সব অপরাধ ঘটছে, রাতের আগ্রহেই
অসুর এলেন নিষিদ্ধ এক পরচুলায়।
পার হয়েছেন অনেক স্টেশন তাই তিনি
হাত না পেতে ব্ল্যাঙ্ক চেকেতে ভিক্ষা নেন
নিজেই কিন্তু এন্টি হিরোর পাঠ করেও
অন্যজনকে সাইড রোলের দীক্ষা দেন।
এখান থেকেই যাবেন তিনি দূরদেশে
গমন পথটা লিখবে কোনো সস্তা ড্রেন
ওপর নীচের স্বর্গ পাতাল না চিনলেই
আমজনতা ভীষণ রকম পস্তাবেন।
মাসের হিসেবে তিরিশ দিনেও হচ্ছে না
গণিত নিজেও লুকিয়ে থাকছে অঙ্গারে
কি নাম যেন গলায় ঝোলে যুবকটার ?
সেই যে গেলো কাল পুলিশের সংসারে।
সেখান থেকে বাইরে আসাও সমস্যার
অতৃপ্ত কাক মাংস দেখলে পোষ মানে
নিখুঁত কোনো প্রমাণ হাতে না থাকলেও
আগের জন্মে লুকিয়ে থাকা দোষ টানে।
ওই যে যেমন চেরাই হওয়া গাছগুলো
জাতিস্মরে মোমজাতীয় পালিশ কই ?
তুই যখনই ঘুমিয়ে যাবার ছক খুঁজিস
আমিই এসে তোর মাথাতে বালিশ হই।
তুলোর ভেতর মাথার ছাঁচ সে গর্তটায়
তলিয়ে যেতে তিনিই দেবেন আস্কারা
একেই বলে মৃত্যুদিনের সমাজ শোক
কাটিয়ে দেবে যত্নে কয়েক মাস তারা।
এবার না হয় বালিশ ছেড়ে ঘুম ভাঙুক
ওই যে অসুর, দেখিয়ে দিতে জাদুর ঘা
মৌন থাকার আবেগ ভুলে সেই তাকেই
উপোস ভেঙে ত্রিশূল বেঁধাক মা দুর্গা।
পশ্চিমবঙ্গ, ভারতবর্ষ ।
এই লেখাটি শেয়ার করুন

সম্পাদকের কথা

লেখালিখি ও সৃজনশীল সাহিত্য রচনার চেষ্টা খুবই সহজাত এবং আবেগের দুর্নিবার আকর্ষণ নিজের গভীরে কাজ করে। পাশাপাশি সম্পাদনা ও প্রকাশনার জন্য বিশেষ তাগিদে অনুভব করি। সেই প্রেরণায় ছাইলিপির সম্পাদনার কাজে মনোনিবেশ এবং ছাইলিপির পথচলা। ছাইলিপিতে লিখেছেন, লিখছেন অনেকেই। তাদের প্রতি আমার অশেষ কৃতজ্ঞতা। এই ওয়েবসাইটের প্রতিটি লেখা মূল্যবান। সেই মূল্যবান লেখাকে সংরক্ষণ করতে লেখকদের কাছে আমরা দায়বদ্ধ। কোন লেখার মধ্যে বানান বিভ্রাট থাকলে সেটির জন্য আন্তরিক দুঃখ প্রকাশ করছি। ছাইলিপি সম্পর্কিত যে কোন ধরনের মতামত, সমালোচনা জানাতে পারেন আমাদেরকে । ছাইলিপির সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ ।