তানজিম সাইয়ারা তটিনী ও সাদিয়া আয়মানের জীবনী

তানজিম সাইয়ারা তটিনী ও সাদিয়া আয়মানের জীবনী

সিনেমানামা ডেস্ক

তানজিম সাইয়ারা তটিনি। বাংলাদেশের নাটক ভক্ত হয়ে থাকলে এই নামটি এখন পর্যন্ত শোনেননি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কঠিন। তটিনি এমন একটি নাম, যাকে হয়ত নামে না চিনলেও তার হাসিতে কিংবা মিষ্টি চেহারায় চিনে থাকবেন। অবশ্য তার আরও একটি নাম আছে, সুহাসিনি। এই নামটির মাধ্যমেই তার নাটকে একক যাত্রা শুরু হয়েছিলো।

নদীর সরল-যৌগিক সরোবর বয়ে প্রাচ্যের ভেনিস বরিশালের বুক চিরে… তটিনী.. যার অর্থ নদী। সেই বরিশালের কীর্তণখোলা, সন্ধা, সুগন্ধা, বিশখালী বলেশ্বরের মতো আকাবাঁকা জলস্রোতের কাব্যকথার সুর ধরেই হয়ত তার নাম রাখা হয়েছিলো তটিনী। এসময়ের সব থেকে পছন্দের, মিষ্টিমুখ…তানজীম সাইয়্যারা তটিনী। ছোটবেলা থেকে বেড়ে ওঠা বরিশালে। হতে চেয়েছিলেন ডাক্তার কিন্তু সেটা আর সম্ভব হয়ে ওঠেনি। লেখাপড়া করেছেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগে।

আরও বিস্তারিত জানতে এই ভিডিওটি দেখুন

অপরদিকে আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী সাদিয়া আয়মানের বাড়িও বরিশালে। বরিশাল থেকে ঢাকায় গিয়েছিলেন পড়াশোনা করতে, পড়াশোনার পাশাপাশি টুকটাক বিজ্ঞাপনেও কাজ শুরু করেছিলেন এই অভিনেত্রী। এরপর নাটকে পা দিলে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। বর্তমান সময়ে বাংলা নাটকের এই জনপ্রিয় অভিনেত্রীর। সাদিয়া আয়মান তার ভক্তদের উদ্দ্যেশ্যে বলেন, “আমার মতো মেয়েকে তাদের বউ বানানোর স্বপ্ন দেখে’

সাদিয়া আয়মানের প্রথম সিনেমা কাজল রেখা। প্রথম সিনেমা ‘কাজলরেখা’ নিয়ে এই নায়িকা বলেন,‘আমার আশা, দর্শক আমাকে পছন্দ করবেন। এখন তো সিনেমার প্রস্তাব পাই। তবে এই সিনেমার পরেই সিদ্ধান্ত নেব সিনেমা করব কি না। দেখা যাক।

তটিনী ও সাদিয়া আয়মানের মধ্যে প্রতিদ্বন্দীতা আছে কি না এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাদিয়া আয়মান বলেন, “তটিনীর সাথে আমার কোন প্রতিদ্বন্দীতা নেই। কারণ তটিনী এবং আমি বরিশালের মেয়ে, বরিশালে আমরা একই কলেজে পড়াশোনা করেছি। তটিনী আমার এক বছরের জুনিয়র। ঠিক একই কথা বলেছেন তানজিম সাইয়ারা তটিনী। তটিনী বলেছেন, ভক্তরা হয়ত তাদের ভেতরে আমাদের নিয়ে প্রতিদ্বন্দীতা সৃষ্টি করেছে। তবে বাস্তবিক অর্থে সাদিয়া আপুর সাথে আমার কোন প্রতিদ্বন্দীতা নেই। বরং সাদিয়া আপু আমার সিনিয়র। আমরা একই কলেজে পড়াশোনা করি।

মিষ্টি হাসি ও মিষ্টিভাসির অভিনেত্রী তটিনী। তার হাসির ঝিলিকে বুঁদ হয়ে থাকেন দর্শকেরা। অপরদিকে সাদিয়া আয়মানের ভেতরের চঞ্চলতাকে তার ভক্তরা বেশি ভালোবাসেন। এমন উৎফুল্ল অভিনেত্রী স্পষ্টভাষী সাদিয়া আয়মানের বেশ কিছু নাটক জনপ্রিয়। ভক্তরা খুব শীঘ্রই সিনেমায় দেখতে চায়।

প্রিয় দর্শক বর্তমান সময়ের এই দু’জন অভিনেত্রীর মধ্যে কাকে আপনার সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে? নাকি দু’জনকেই ভালো লাগে? সে সম্পর্কে আপনার মতামত জানাতে পারেন কমেন্ট বক্সে। ভিডিওটি ভালো লাগলে অবশ্যই ভিডিওটিতে লাইক এবং পরবর্তীতে এই চ্যানেল থেকে নতুন ভিডিওর আপডেট পেতে চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করতে ভুলবেন না।

“বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। কেউ যদি অনুমতি ছাড়া লেখা কপি করে ফেসবুক কিংবা অন্য কোন প্লাটফর্মে প্রকাশ করেন, এবং সেই লেখা নিজের বলে চালিয়ে দেন তাহলে সেই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য থাকবে
ছাইলিপি ম্যাগাজিন।”

সম্পর্কিত বিভাগ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Facebook
WhatsApp
Telegram
কেউ পারিনি ওপারে যেতে

কেউ পারিনি ওপারে যেতে

ইব্রাহিম বিশ্বাস সারা রাত জেগে জেগে আমি কাদের আনাগুনা দেখি ওরা কারা ? সবার কাঁধে কাঁধে লাশ হাঁটতে হাঁটতে ক্লান্ত নদীর কিনারায় এসে দাঁড়িয়েছে মৌ ...
কোপা আমেরিকা ২০২৪ - সময়সূচি ও লাইভ (Copa America 2024)

কোপা আমেরিকা ২০২৪ – সময়সূচি ও লাইভ (Copa America 2024)

কোপা আমেরিকা বিশ্বব্যাপী অন্যতম মর্যাদাপূর্ণ ফুটবল টুর্নামেন্ট হিসেবে দাঁড়িয়েছে, যা দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলের অতুলনীয় আবেগ এবং দক্ষতা প্রদর্শন করে। ইতিহাস ও ঐতিহ্যে ঠাসা, এই টুর্নামেন্টটি ...
নৈশভোজ | দীর্ঘ কবিতা | সাপ্তাহিক স্রোত

নৈশভোজ | দীর্ঘ কবিতা | সাপ্তাহিক স্রোত

I প্রিয় রহমান আতাউর    অঘ্রানের শীতে- রাতের আহারশেষে আরাম কেদারায় বসে – ঘামতে থাকেন কবি। সামান্যই খেয়েছিলেন কাকরোল ভাজি ও বাঁশমতি চালের ভাত – ...
ঈদ ও জীবন

ঈদ ও জীবন

মজনু মিয়া আকাশের চাঁদ দেখা মাত্রা আনন্দ ক্ষণ শুরু কেনাকাটা শুরু আরও আগে থেকে হইছে কারও আবদার পূরণ করা সম্ভব নয় তো আমার অভাবের সংসারে ...
হৃদয়ের যোগসূত্র

হৃদয়ের যোগসূত্র

সাজিয়া আফরিন স্বপ্না শ্রাবণের প্রথম দিন আজ। রাত থেকেই বিরামহীন বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টির দিনের সব সুখের স্মৃতি ঢাকা পড়ে গেছে একটা স্মৃতির অন্তরালে। একটা স্মৃতি ...
১৫ ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের কবিতা আবৃত্তি

১৫ ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের কবিতা আবৃত্তি

১৫ই আগষ্ট বাঙালী জাতির ইতিহাসের নৃশংসতম একটি দিন। এ দিনে জাতি হারিয়েছে তার জনককে। ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগষ্টে ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাড়িতে একদল বিপথগামী ...