দুর্গতিনাশিনী 

দুর্গতিনাশিনী 

অমিত মজুমদার 

নগর এখন শহর থেকেও অনেক দূর
বিপদসীমার আবেগপ্রবণ ফর্মুলায়
সব অপরাধ ঘটছে, রাতের আগ্রহেই
অসুর এলেন নিষিদ্ধ এক পরচুলায়।
পার হয়েছেন অনেক স্টেশন তাই তিনি
হাত না পেতে ব্ল্যাঙ্ক চেকেতে ভিক্ষা নেন
নিজেই কিন্তু এন্টি হিরোর পাঠ করেও
অন্যজনকে সাইড রোলের দীক্ষা দেন।
এখান থেকেই যাবেন তিনি দূরদেশে
গমন পথটা লিখবে কোনো সস্তা ড্রেন
ওপর নীচের স্বর্গ পাতাল না চিনলেই
আমজনতা ভীষণ রকম পস্তাবেন।
মাসের হিসেবে তিরিশ দিনেও হচ্ছে না
গণিত নিজেও লুকিয়ে থাকছে অঙ্গারে
কি নাম যেন গলায় ঝোলে যুবকটার ?
সেই যে গেলো কাল পুলিশের সংসারে।
সেখান থেকে বাইরে আসাও সমস্যার
অতৃপ্ত কাক মাংস দেখলে পোষ মানে
নিখুঁত কোনো প্রমাণ হাতে না থাকলেও
আগের জন্মে লুকিয়ে থাকা দোষ টানে।
ওই যে যেমন চেরাই হওয়া গাছগুলো
জাতিস্মরে মোমজাতীয় পালিশ কই ?
তুই যখনই ঘুমিয়ে যাবার ছক খুঁজিস
আমিই এসে তোর মাথাতে বালিশ হই।
তুলোর ভেতর মাথার ছাঁচ সে গর্তটায়
তলিয়ে যেতে তিনিই দেবেন আস্কারা
একেই বলে মৃত্যুদিনের সমাজ শোক
কাটিয়ে দেবে যত্নে কয়েক মাস তারা।
এবার না হয় বালিশ ছেড়ে ঘুম ভাঙুক
ওই যে অসুর, দেখিয়ে দিতে জাদুর ঘা
মৌন থাকার আবেগ ভুলে সেই তাকেই
উপোস ভেঙে ত্রিশূল বেঁধাক মা দুর্গা।
পশ্চিমবঙ্গ, ভারতবর্ষ ।

“বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। কেউ যদি অনুমতি ছাড়া লেখা কপি করে ফেসবুক কিংবা অন্য কোন প্লাটফর্মে প্রকাশ করেন, এবং সেই লেখা নিজের বলে চালিয়ে দেন তাহলে সেই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য থাকবে
ছাইলিপি ম্যাগাজিন।”

সম্পর্কিত বিভাগ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Facebook
WhatsApp
Telegram
মা হওয়ার সাধ

মা হওয়ার সাধ

সবুজ আহমেদ    অপ্রত্যাশিত ভাবেই ডুবে গেল অনন্ত আলোর গহীন নবকুমার পারেনি দিতে বহু আকাঙ্খার প্রত্যাশিত রাত তাহলে কেন এত অপেক্ষা-প্রতীক্ষার ই- বা কি প্রয়োজন ...
সাপ্তাহিক স্রোত - ২০ তম সংখ্যা

সাপ্তাহিক স্রোত – ২০ তম সংখ্যা

পিডিএফ ডাউনলোড করুন এখান থেকে
মহানগর-২: সিস্টেমের গোঁড়ায় থাকা ভূতদের সামনে আনলেন নির্মাতা?

মহানগর-২: সিস্টেমের গোঁড়ায় থাকা ভূতদের সামনে আনলেন নির্মাতা?

আশিক মাহমুদ রিয়াদ সিজন-১ এ দর্শকের ব্যাপক জনপ্রিয়তার পরে এবার এলো মহানগর সিজন-২। এই সিজন নিয়ে দর্শকের আগ্রহ এতটাই বেশি ছিলো যে মহানগরের সিজন-২ এর ...
ঋষিপাড়ার খুঁটিনাটি

ঋষিপাড়ার খুঁটিনাটি

|প্রিয় রহমান আতাউর আমার সঞ্চয়নের বাসার কাছেই ঋষিপাড়া, প্রায় চৌদ্দ পুরুষের বসতি ওদের, এখানে। এ পাড়া ডিঙ্গিয়েই স্কুলে আসতে হতো আমাদের গাঁয়ের বাড়ী থেকে। গুইসাপ ...
আমার বনস্পতি সময় ও চটি দুঃখ

আমার বনস্পতি সময় ও চটি দুঃখ

I দ্বীপ সরকার   আমার কোন দুঃখ দেখাবার মানুষ নাই ভেতরকার ক্ষত বরং অক্ষতই থেকে যাক চুলচেরা বিশ্লেষণ করে শরীরকে জানতে চেয়েছি শরীর শুধু বিনয়ী ...