দ্য ক্যান্টারবেরি টেলস

দ্য ক্যান্টারবেরি টেলস

আবির ইসলাম

ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থিত কেন্ট কাউন্টির(বিভাগ) একটি ঐতিহ্যবাহী শহর ক্যান্টারবেরি। শহরটি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের অন্তর্ভুক্ত।
ইংরেজি সাহিত্যের জনক হিসেবে খ্যাত মধ্যযুগীয় লেখক ও কবি জেফ্রি চসার( Geoffrey Chaucer) এর বিখ্যাত গল্পগ্রন্থ “দ্য ক্যান্টারবেরি টেলস” এই শহরকে কেন্দ্র করেই রচিত।

সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী শহরটির জনসংখ্যা প্রায় ৫৫ হাজারের মতো। এখানে সব থেকে বেশি বসবাস করেন খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বী মানুষেরা। অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে রয়েছেন মুসলিম, হিন্দু, ইহুদি ও শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ।

ক্যান্টারবেরি শহরে গেলে আপনার মনে হবে আপনি যেন অতিতে হাঁটছেন। শহরটি ঘিরে রয়েছে অসংখ্য পুরনো চার্চ। যার মধ্যে অন্যতম হল কয়েক শতক পুরনো ক্যান্টারবেরি ক্যাথিড্রাল। আরো রয়েছে অসংখ্য প্রাচীন স্থাপত্যশিল্পের নিদর্শন। যার মধ্যে ওয়েস্টগেট টাওয়ার্স , সেন্ট অগাস্টিন’স অ্যাবে, ইস্টব্রিজ হসপিটাল, ক্যান্টারবেরি হেরিটেজ মিউজিয়াম, সিটি ওয়ালস, ক্রাইস্টচার্চ গেট, ক্যান্টারবেরি ক্যাসল অন্যতম।

শহরের কেন্দ্রে রয়েছে ‘Whitefriars’ নামে একটি শপিং সেন্টার। ট্রাডিশনাল কিছু রেস্টুরেন্টসহ এখানে রয়েছে মোটামুটি সব ধরনের ছোট বড় দোকানপাট, চেইন শপ, পাব, কালচারাল সেন্টার।
সারাদিন লোকে লোকারণ্য হয়ে থাকে এই শপিং সেন্টারটি। এছাড়া ক্যান্টারবেরি হাই স্ট্রিটে রয়েছে আরো বেশ কিছু পুরনো দোকানপাট, রেস্টুরেন্ট ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। এখানে প্রায়ই স্ট্রিট সিঙ্গারদের
দেখা যায় বেহালা কিংবা অন্য কোনো বাদ্যযন্ত্র হাতে। তাদের সৃষ্ট সুরে মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে থাকে সম্পূর্ণ সিটি সেন্টার।

ক্যান্টারবেরি শহরে সর্বদাই দেখা যায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদেরকে। এ যেন এক শিক্ষার্থীদের শহর। এখানে রয়েছে বেশ কিছু স্কুল, কলেজ আর ইউনিভার্সিটি। কিংস স্কুল, ক্যান্টারবেরি কলেজ, কেন্ট কলেজ, ইউনিভার্সিটি অফ কেন্ট, ক্যান্টারবেরি ক্রাইস্টচার্চ ইউনিভার্সিটি ইত্যাদি।

ক্যান্টারবেরি শহরের মাঝখান দিয়ে বয়ে গেছে ‘River Stour’ নামে ছোট্ট একটা নদী যেটা দেখতে কিছুটা আমার দেশের খালের মত । এই নদীতে নৌকায় করে ঘোরা যায়। শিল্পকলার অংশ হিসেবে এখানে রয়েছে মার্লো থিয়েটার নামে একটি থিয়েটার। এখানে বেশ কিছু নান্দনিক সৌন্দর্যে মন্ডিত পার্কও রয়েছে। যেমন : ওয়েস্টগেট গার্ডেনস, ডেন জন্স গার্ডেনস, ব্লীন উডস ন্যাশনাল নেচার রিজার্ভ ইত্যাদি অন্যতম। শহর থেকে ১৫ মিনিটের দূরত্বে রয়েছে হলেটস অ্যানিম্যাল পার্ক নামে ১০০ একর জমির উপর করা একটি চিড়িয়াখানা। এছাড়াও রয়েছে কেন্ট কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাব।

ঐতিহ্য-সংস্কৃতি-প্রকৃতি এই তিনে মিলেমিশে যেন একাকার এই শহরটি। পরিশেষে বলব যেকোনো ভ্রমণপিপাসুদের জন্য অথবা যারা বিশ্ব ইতিহাসও ঐতিহ্য নিয়ে আগ্রহী তাদের জন্য নিঃসন্দেহে আদর্শ একটি জায়গা হল ক্যান্টারবেরি।

 

Thanet, Kent, United Kingdom

“বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। কেউ যদি অনুমতি ছাড়া লেখা কপি করে ফেসবুক কিংবা অন্য কোন প্লাটফর্মে প্রকাশ করেন, এবং সেই লেখা নিজের বলে চালিয়ে দেন তাহলে সেই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য থাকবে
ছাইলিপি ম্যাগাজিন।”

সম্পর্কিত বিভাগ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Facebook
WhatsApp
Telegram
একরাতে ঘুম হয়নি আমার

একরাতে ঘুম হয়নি আমার

সৈকত রায়হান   বিষাদে ভিজে ওঠা ঘুমগুলো চলে গেছে নক্ষত্রের সান্নিধ্যে, আমি ঘুমোতে পারিনি। আশ্বিনের ক্ষয়াখর্বুটে চাঁদের ম্লান আলো কিংবা উজ্জ্বল নক্ষত্র আমার ঘুমের কোন ...
একুশ এলে

একুশ এলে

মোঃ আরমান হিমেল  ফেব্রুয়ারির একুশ এলে, বিয়োগ স্মৃতি মনে পড়ে! বায়ান্নর সেই বীর শহীদের, মায়ের চোখে অশ্রু ঝরে! ফেব্রুয়ারির একুশ এলে, মনে বাজে করুণ সুর! ...
বিজয়ের গান

বিজয়ের গান

মহীতোষ গায়েন পৃথিবীর সব গাছ সব নদী,জলাশয়,মাঠঘাট, আকাশ আজও মুখরিত বিজয় বাংলাদেশ গানে। বাইগার নদী তীরে তাল তমাল,হিজলের শাখায় মুক্তির শিহরণ খেলে,সুর বয় ভাটিয়ালি মাঝির ...
আশা ভালোবাসা

আশা ভালোবাসা

জোবায়ের রাজু এরা বেশ পয়সাওয়ালা, বলতেই হবে। দামী সোফা, আলো ঝলমলে ঝাড়বাতি, মেঝেতে চোখ ধাঁধাঁনো কার্পেট, দেয়াল জুড়ে দামী দামী তৈল চিত্রÑসব মিলিয়ে ঘরটাকে আলিশান ...
ষোলই ডিসেম্বর

ষোলই ডিসেম্বর

ড. মির্জা গোলাম সারোয়ার পিপিএম  লাখো শহীদের আত্নত্যাগে এদেশ স্বাধীন হয়, বীর বাঙালি এদেশের জন্য বুকের রক্ত দেয়। মুক্তিযোদ্ধারা জীবন দিয়েই স্বাধীন করে দেশ, বিশ্বের ...
কবিতা- নদী-ফকির

কবিতা- নদী-ফকির

 অনিরুদ্ধ সুব্রত    এতো যে সর্দি কাসির দোষ, তবু শেষ অবধি জলের ধারার পাশে এসে একচিলতে ঘর বেঁধে থিতু হলাম, কোনও রোগা নদীটিকে ভালবেসে দেখলাম ...