নেগিটিভ মার্কেটিং কি? এর সুবিধা – অসুবিধা (Pepsi vs Coca-Cola)

নেগিটিভ মার্কেটিং কি? এর সুবিধা - অসুবিধা (Pepsi vs Coca-Cola)

ছাইলিপি ডেস্ক

নেতিবাচক বিপণন, যা “আক্রমণ বিজ্ঞাপন” নামেও পরিচিত, একটি বিপণন কৌশল যা একটি প্রতিযোগীর অফারকে হেয় করার মাধ্যমে একটি পণ্য বা পরিষেবার প্রচারের সাথে জড়িত। প্রতিযোগীর পণ্য বা পরিষেবা সম্পর্কে ভোক্তাদের মনে ভয়, অনিশ্চয়তা এবং সন্দেহ (FUD) তৈরি করতে প্রায়ই এই পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়।

যদিও নেতিবাচক বিপণন মনোযোগ আকর্ষণ এবং গুঞ্জন তৈরি করার একটি কার্যকর উপায় হতে পারে, এটি বিতর্কিতও হতে পারে এবং ঝুঁকি বহন করতে পারে। এই নিবন্ধে, আমরা নেতিবাচক বিপণনের সুবিধা এবং অসুবিধাগুলি অন্বেষণ করব এবং কোম্পানিগুলির কিছু উদাহরণ প্রদান করব যারা তাদের বিজ্ঞাপন প্রচারে এই কৌশলটি ব্যবহার করেছে৷

বিজ্ঞাপন




নেতিবাচক মার্কেটিং এর সুবিধা-

এটি মনোযোগ আকর্ষক হতে পারে
নেতিবাচক বিপণন ভোক্তাদের মনোযোগ আকর্ষণ করার জন্য একটি অত্যন্ত কার্যকর উপায় হতে পারে। একটি প্রতিযোগীর পণ্য বা পরিষেবা আক্রমণ করে, কোম্পানি বিতর্ক তৈরি করতে পারে এবং গুঞ্জন তৈরি করতে পারে। এর ফলে মিডিয়া কভারেজ এবং সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যস্ততা বৃদ্ধি পেতে পারে, যার ফলে কোম্পানির নিজস্ব পণ্য বা পরিষেবা সম্পর্কে আরও বেশি সচেতনতা তৈরি হয়।




 

এটি অনুভূত দুর্বলতা তুলে ধরতে পারে
একটি প্রতিযোগীর পণ্য বা পরিষেবা আক্রমণ করে, কোম্পানিগুলি অফারে অনুভূত দুর্বলতা এবং ত্রুটিগুলি হাইলাইট করতে পারে। এটি কোম্পানির নিজস্ব পণ্য বা পরিষেবাকে তুলনামূলকভাবে শক্তিশালী এবং আরও পছন্দসই দেখাতে পারে।

এটা ভোক্তাদের আবেগ আপীল করতে পারেন
নেতিবাচক বিপণন অত্যন্ত আবেগপ্রবণ হতে পারে, ভোক্তাদের ভয়, উদ্বেগ এবং হতাশাকে আকর্ষণ করে। এটি ভোক্তাদের সাথে একটি শক্তিশালী মানসিক সংযোগ তৈরি করতে পারে এবং ব্র্যান্ডের আনুগত্য বৃদ্ধি করতে পারে।




নেতিবাচক মার্কেটিং এর অসুবিধা-

এতে ব্র্যান্ডের সুনাম নষ্ট হতে পারে
নেতিবাচক বিপণন অত্যন্ত বিতর্কিত হতে পারে এবং ব্র্যান্ডের সুনামকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। ভোক্তারা কোম্পানিটিকে আক্রমনাত্মক, অনৈতিক, বা অসৎ বলে মনে করতে পারে, যার ফলে বিশ্বাস এবং আনুগত্য নষ্ট হয়।

এটা ব্যাকফায়ার করতে পারে
নেতিবাচক বিপণন ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে, কারণ ভোক্তারা যদি কোম্পানির আক্রমণকে অন্যায্য বা অযৌক্তিক বলে মনে করেন তবে এটি ব্যাকফায়ার হতে পারে। গ্রাহকরা কোম্পানির পণ্য বা পরিষেবা বর্জন করে এটি একটি প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে।




এটা ব্যয়বহুল হতে পারে
নেতিবাচক বিপণন ব্যয়বহুল হতে পারে, কারণ কোম্পানিগুলিকে তাদের আক্রমণ থেকে কোনো নেতিবাচক প্রচার বা ফলআউট মোকাবেলা করতে বিজ্ঞাপন এবং PR-এ প্রচুর বিনিয়োগ করতে হতে পারে।

নেতিবাচক বিপণনের উদাহরণ

পেপসি বনাম কোক
পেপসি তার “পেপসি চ্যালেঞ্জ” প্রচারাভিযানে নেতিবাচক বিপণন ব্যবহার করেছে, যেখানে এটি ভোক্তাদের পেপসি এবং কোকের অন্ধ-স্বাদ-পরীক্ষা করতে এবং তাদের পছন্দগুলিকে রেট দিতে বলে। ক্যাম্পেইনটি বোঝায় যে পেপসি কোকের থেকে উচ্চতর এবং বিক্রয় এবং বাজারের শেয়ার চালনায় সফল হয়েছে।




ম্যাক বনাম পিসি
অ্যাপল তার “গেট এ ম্যাক” প্রচারাভিযানে নেতিবাচক বিপণন ব্যবহার করেছে, যেখানে এটি পিসি ব্যবহারকারীদের নিস্তেজ এবং আনহিপ হিসাবে চিত্রিত করেছে, যখন ম্যাককে একটি শীতল এবং আরও পছন্দসই বিকল্প হিসাবে প্রচার করেছে। অ্যাপলকে একটি ট্রেন্ডসেটিং ব্র্যান্ড হিসেবে অবস্থান করার ক্ষেত্রে প্রচারটি অত্যন্ত কার্যকরী হয়েছে।



এভিস বনাম হার্টজ
আভিস তার “উই ট্রাই হার্ডার” প্রচারাভিযানে নেতিবাচক বিপণন ব্যবহার করেছে, যেখানে এটি হার্টজের পিছনে দ্বিতীয়-সেরা গাড়ি ভাড়া কোম্পানি হওয়ার কথা স্বীকার করে কিন্তু দাবি করে যে এটি গ্রাহকদের খুশি করার জন্য আরও কঠিন চেষ্টা করে। প্রচারাভিযানটি Avisকে আরও গ্রাহক-কেন্দ্রিক এবং পরিষেবা-ভিত্তিক ব্র্যান্ড হিসাবে অবস্থান করতে সফল হয়েছে।

উপসংহার

নেতিবাচক বিপণন একটি বিতর্কিত কিন্তু কার্যকর বিপণন কৌশল হতে পারে। যদিও এটি মনোযোগ আকর্ষণ করতে পারে এবং প্রতিযোগীর অফারে অনুভূত দুর্বলতাগুলি হাইলাইট করতে পারে, এটি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ব্যয়বহুলও হতে পারে। যে কোম্পানিগুলি নেতিবাচক বিপণন ব্যবহার করতে পছন্দ করে তাদের তা সতর্কতার সাথে করা উচিত, সম্ভাব্য ঝুঁকি এবং সুবিধাগুলি বিবেচনায় নিয়ে এবং তাদের আক্রমণটি ন্যায্য এবং ন্যায়সঙ্গত তা নিশ্চিত করা।

“বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। কেউ যদি অনুমতি ছাড়া লেখা কপি করে ফেসবুক কিংবা অন্য কোন প্লাটফর্মে প্রকাশ করেন, এবং সেই লেখা নিজের বলে চালিয়ে দেন তাহলে সেই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য থাকবে
ছাইলিপি ম্যাগাজিন।”

সম্পর্কিত বিভাগ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Facebook
WhatsApp
Telegram
সাপ্তাহিক স্রোত - সংখ্যা-১৯

সাপ্তাহিক স্রোত – সংখ্যা-১৯

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর অবশেষে প্রকাশ হলো ছাইলিপির সাপ্তাহিক সংখ্যা সাপ্তাহিক স্রোত । স্বল্প সময়ে অনেক লেখা পেয়েছে স্রোতের এই ১৯ তম সংখ্যাটি।  আমাদের একটু আধটু ...
যেমন গানের রেওয়াজ, শরীরীর চর্চা, সাঁতার শেখা,  তেমনি নিয়মিত রবীন্দ্র সাহিত্য চর্চা খুবই জরুরী

যেমন গানের রেওয়াজ, শরীরীর চর্চা, সাঁতার শেখা, তেমনি নিয়মিত রবীন্দ্র সাহিত্য চর্চা খুবই জরুরী

 মিরাজুল হক তখন কি হবে? যখন আমাদের নতুন প্রজন্ম চোদ্দ পনের বয়সের ছেলেমেয়েদের কাছ থেকে কিছু প্রত্যশা করা হবে । বিশেষ করে আশা করা হবে ...
জীবনানন্দ দাশকে মনে করে -গোলাম কবির 

জীবনানন্দ দাশকে মনে করে -গোলাম কবির 

 গোলাম কবির    ” ক্লান্ত প্রাণ এক, চারিদিকে জীবনের  সমুদ্র সফেন,  আমারে দু-দন্ড শান্তি দিয়েছিলো  নাটোরের বনলতা সেন! ”  এই যে সরল স্বীকারোক্তি করেছিলো  একসময়ের ...
ভ্রমণ গল্প - ট্রেন ভ্রমণের অভিজ্ঞতা

ভ্রমণ গল্প – ট্রেন ভ্রমণের অভিজ্ঞতা

এম এ হালিম ছোট্ট বেলা থেকেই শামসুর রহমানের ‘ট্রেনের বাড়ি কই’ কবিতাটি পড়েই যেনো ট্রেন গাড়ির সঙ্গে আমাদের দেশের  অনেক শিশুর পরিচয়। তবে অনেকই বাস্তবে ...
ইদ পরানের মেলা

ইদ পরানের মেলা

নিশিকান্ত রায় মিলেই যাবে রঙ ধনুটা,ভাবছি বসে ঘাটে, জোয়ার ভাসে জলের শ্বাসে সূর্যি বসে পাটে। মরুর হাওয়া আলোছায়া, সাগর ভরা গান, শস্য শ্যামল কোমল ছায়ায় ...
ঈদের আনন্দ

ঈদের আনন্দ

মোঃ মজিবুর রহমান ঈদ এলো নতুন করে বছর গুড়িয়ে, হাসিখুশি থাকবো মোরা সবাইকে নিয়ে। মুখে মুখে মাতামাতি হয়না তবু বন্ধ, বন্ধু আর বান্ধব মিলে থাকবে ...