বাংলা ব্যান্ড সঙ্গীতে; মা’কে নিয়ে যে গানগুলো হৃদয় ছুঁয়ে যায়!

বাংলা ব্যান্ড সঙ্গীতে; মা'কে নিয়ে যে গানগুলো হৃদয় ছুঁয়ে যায়!

আশিক মাহমুদ রিয়াদ

আজ মা দিবস। মা-ছোট্ট একটি শব্দ। কিন্তু এই শব্দের পরিধি কিংবা বিস্তৃতি কি বিশাল। সৃষ্টি শুরু থেকে এই শব্দটি শুধু মধুর নয়,ভালোবাসার,আবাগের,ক্ষমতার কিংবা তার চেয়েও বেশি। মায়ের অনুগ্রহ ছাড়া পৃথিবীর কোন প্রানীরই প্রাণ ধারণ করা সম্ভব নয়। তিনি আমাদের মা,আমাদের গর্ভধারিনী। আমাদের জনক,আমাদের জননী। ‘মা’ শুধু এই একটি শব্দ পৃথিবীতে কত মধুর। সন্তানের কাছে মা মানে গোটা পৃথিবী। শুধু পৃথিবী বললে ভুল হবে মায়ের কাছে আছে পরকালেরও ঋণ। তাইতো বলে, “মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেশত। ‘ মা মানে জীবন।

বাংলা ব্যান্ড সঙ্গীতেও মা’কে ট্রিবিউট করে গাওয়া হয়েছে অনেক গান। নগরবাউল জেমস, এলআরবি’র প্রয়াত আয়ূব বাচ্চু থেকে শুরু করে হালের আফটারম্যাথের মা’কে নিয়ে গাওয়া গানগুলো দর্শকদের হৃদয় ছুঁয়েছে।

নগরবাউল জেমস এর “মা”

নগরবাউল জেমসের মা’ গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়। আজও শ্রোতারা কনসার্টে এই রকস্টারের গাওয়া গানটি শুনে চোখের পানি ফেলে। বিশেষ করে, “রাতের তারা আমায় কি তুই বলতে পারিস? কোথায় আছে কেমন আছে মা?” এই লাইনগুলো মাতৃত্বহীন মানুষদেরকে ভীষণভাবে নাড়া দেয়।

আইয়্যুব বাচ্চুর কন্ঠে “মা”
বাংলাদেশের সঙ্গীতভূবনে ‘আইয়্যুব বাচ্চু’ এক মাইলস্টোন। ‘রূপালি গিটারের জাদুকর আইয়্যুব বাচ্চুও গেয়েছেন মা’কে নিয়ে গান। “ঐ দূর আকাশের তারারে, বলে দে না কোনটা আমার মা” গানটি শ্রোতাদের মাঝে ব্যপক জনপ্রিয়। এ ছাড়াও আইয়্যুব বাচ্চুর গাওয়া আরও একটি গান ব্যাপক জনপ্রিয়। চিত্রনায়ক মান্না অভিনিত সিনেমায় “আম্মাজান” গানটির টাইটেল ট্র্যাক গেয়েছিলেন প্রয়াত এবি।

কুমার বিশ্বজিৎ এর গলায় “মা”

বাংলাদেশের ব্যান্ড সঙ্গীতের ভূবনে কুমার বিশ্বজিৎ এক নক্ষত্রের নাম। ১৯৭৭ সালে একটি রেডিও অনুষ্ঠানে প্রথম গান গাওয়ার মাধ্যমে সুরের ভুবনে যাত্রা শুরু করেন। এরপর ‘রিদম ৭৭’ নামে একটি ব্যান্ডে দুই বছর গান করেন। ১৯৭৯ সালে ‘ফিলিংস’ নামে আরেকটি ব্যান্ড গঠন করেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনে কুমার বিশ্বজিৎ প্রথম গান করেছিলেন ১৯৮০ সালের দিকে।

কুমার বিশ্বজিৎ এর গলায় গাওয়া “মা” গানটিও বেশ শ্রোতা প্রিয়। “একটা চাঁদ ছাড়া রাত আঁধার কালো। মায়ের মমতা ছাড়া কে থাকে ভালো?” গানের লাইনগুলো শ্রোতাদের ভেতরে নাড়া দিয়ে যায়। গানটি লিখেছেনঃ কবির বকুল।

আফটার ম্যাথ এর “উৎসর্গ”

মা’কে নিয়ে সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় গানটি আফটার ম্যাথ এর উৎসর্গ। গানটির প্রেক্ষাপটে একজন ব্যর্থ সন্তান তার মায়ের প্রতি দুঃখ প্রদর্শন করে। যে সন্তানটি চায় তার প্রিয় দিকে যেতে কিন্তু জীবনযন্ত্রণার এক অদ্ভুত ভারে সে কাতর। গানটি শ্রোতাদের ভেতরে প্রবল্ভাবে নাড়া দেয়। ভীষণ মানসিক যন্ত্রণার ভার কমাতে গানটি প্যারাসিটমলের মতো কাজ করে। বিশেষ করে গানগুলোর লাইন –

আমি দু‘হাত বেঁধে ধরে রাখি ঘড়ির কাঁটা, বন্ধ দরজা নয় খোলা জানালা
নিয়ে আসে আমায় নতুন ঠিকানায়
আমি শিল্পী নয় হতে চাই জাদুকর, সূরের মুর্ছনায় কাটাবো প্রহর
স্বপ্ন দেখা কি এত ভুল?

আমি সৃষ্টি ক্ষুধায় জ্বলে পূড়ে ছারখার, নেই সাহস আমার পথ পেরোবার
কি করে তোমার গর্ব হব মা?
মাগো অঝর বর্ষায় মিশে যাব তোমার চোখের নোনা বৃষ্টিতে অভিমান হয়ে
ভেবো আমি পাশেই আছি তোমার
বল কি করে বেঁচে থাকব?

সহজিয়ার “মা”
বর্তমান সময়ে জনপ্রিয় ব্যান্ডগুলোর মধ্যে সহ’জিয়া অন্যতম। সহ’জিয়ার গানগুলো স্নিগ্ধ আবেশের মতো। সেই আবেশকে তারা মায়ের আঁদরে নিয়ে গিয়েছেন। সহজিয়ান ব্যান্ডের রঙ মিস্ত্রি অ্যালবামের মা গানটি ভীষণ কোমল। সহজিয়ার গানগুলো যেমন নেশাতুর ঘোর লাগানো। ঠিক মা’গানটি অপার্থিব। এই পৃথিবীতে যেখানে প্রায় সব কিছুই লেখা হয়ে গেছে, একইরকম সুর গুলো বারবার ঘুরবফিরে কানে আসছে – সেখানে এই তোমরা “সহজিয়া” এ কি এক অদ্ভুত কথা আর সুরের মায়ায় আচ্ছন্ন করে গেলে কোমল মুগ্ধতায়।

” ঘুম ঘুম দিন যায় ঘুম ঘুম রাত
ঘুম ঘুম সবকিছু ঘুম অজুহাত
ঘুমের পরীরা সব চোখে চোখে ওড়ে
আমি মা জাগতে চাই তোমার শরীরে”

“শহরতলী’র মা”

শহরতলী ব্যান্ডের মা’ গানটি বেশ আন্ডাররেটেড। গানটি প্রকাশ হয় আজ থেকে চার বছর আগে। গানের কথাগুলো এতটাই মধুর যে চোখ ছল ছল করে। ও মা দেখো তোমার ছেলে কত বড় হয়েছে তুমি একটু দেখোনা, দেখোনা ও মা আজ অবুঝ ছেলে কত বুঝের হয়েছে তুমি ফিরে আসোনা…আসোনা তোমার আঁচলের শীতল ছায়ায় আমায় ঢেকে দাও না

আজ হঠাৎ করে মনে পড়ছে তোমায় মা
স্মৃতির চাদরে জড়িয়ে আজ আমায়
ভাসালে চোখের লোনায়
অথৈ সাগরে একা আমি ভেলায়

সর্বোপরি বাংলা ব্যান্ড মিউজিকে মা’কে ট্রিবিউট করা গানগুলো সত্যিই দুর্দান্ত এবং চমৎকার তো বটেই। ব্যান্ড মিউজিক মানেই একটা মিউজিকের পারফেক্ট কম্বো। গানের কথা, কন্ঠশিল্পীর গলার সুর, মিউজিক অ্যারেজমেন্ট সব মিলিয়ে দুর্দান্ত। এই লেখায় যদি কোন ব্যান্ডের “মা” কে উৎসর্গ করা গানের কথা মিস করা থাকে তাহলে অনুগ্রহপুর্বক কমেন্টে জানাতে পারেন। আন্তরিক শুভ কামনা। পৃথিবীর সব মায়েরা ভালো থাকুন, ভালো থাকুক মায়ের অবুঝ সন্তানেরা।

আশিক মাহমুদ রিয়াদ
(টিম বিবিএমএফসি)

“বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। কেউ যদি অনুমতি ছাড়া লেখা কপি করে ফেসবুক কিংবা অন্য কোন প্লাটফর্মে প্রকাশ করেন, এবং সেই লেখা নিজের বলে চালিয়ে দেন তাহলে সেই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য থাকবে
ছাইলিপি ম্যাগাজিন।”

সম্পর্কিত বিভাগ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Facebook
WhatsApp
Telegram
প্রবন্ধ-  বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ; একটি জাতীয় জাগরণ

প্রবন্ধ- বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ; একটি জাতীয় জাগরণ

বারিদ বরন গুপ্ত একটি জাতি ভাষা সংস্কৃতি ঐতিহ্য রক্ষা করার জন্য যেভাবে প্রাণপণ লড়াই করেছিল তা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল,বলতে গেলে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ছিল একটা জাতির অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই ...
এবার মরু [পর্ব-০২]

এবার মরু [পর্ব-০২]

গৌতম সরকার যেখানেই যাই না কেন, সেখানকার রেলস্টেশনটা দেখা আমার ট্যুর আইটিনেরারির একদম ওপরের দিকে থাকে; আর রেলস্টেশন যেহেতু সাইট-সিয়িংয়ের লিস্টের মধ্যে পড়েনা তাই ওটা ...
আরেকটি শিরোনামহীন কবিতা

আরেকটি শিরোনামহীন কবিতা

আশিক মাহমুদ রিয়াদ   এ কবিতার নাম কি রুদ্ধশ্বাস দেয়া যায়? যেখানে এক নরম মেরুদন্ডী জীব- বাঁচার প্রাণপন চেষ্টা করে? এ শহরের কি কোন মায়া ...

কবিতা-“শিক্ষক”

আরিফুল ইসলাম আকাশ     অ, আ, ক, খ, গ বর্ণমালার বাণী,  যিনি দিলো মোর একালো মস্তিষ্কে ঢালি। তারা ঝড়, তুফানে ছোটে ছাড়িয়া ঘর,  তারাই ...
‘হোম ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’-স্মৃতিচারণে অমর্ত্য

‘হোম ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’-স্মৃতিচারণে অমর্ত্য

ড. গৌতম সরকার ‘অমর্ত্য’ নামটি স্বয়ং রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দেওয়া। শৈশবের কিছুটা সময় কেটেছে শান্তিনিকেতনের সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে অসংখ্য গুণী মানুষের সান্নিধ্যে। বাবা ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন ...
Facebook Status: বাংলা রোমান্টিক ছন্দ (এসএম এস, FB Post, Best FB Caption)

Facebook Status: বাংলা রোমান্টিক ছন্দ (এসএম এস, FB Post, Best FB Caption)

১.তোমার আগমনে আমার জীবন যেন নতুন রং খুঁজে পেয়েছে। সে রঙের মহিমায় আমি সব সময় উচ্ছ্বসিত থাকি। সে রং আমাকে সব সময় অনুপ্রেরণা যোগায়, আত্মবিশ্বাস ...