অসুখী তুই, আগুনখেকো

অনঞ্জন

আগুনখেকো মানুষ দেখে যুঁই তাকে সুগন্ধে ভোলাতে চায়

যুঁই-এর সুগন্ধে, নীরব বন্দনায় নেশা লাগে আগুনখেকোর

নারকীয় রং দেখায়, ক্ষত দেখায়, চেটে নেয় স্বাদু ফোঁটা,

সে আগুনে নৃত্যে অভিভূত যুঁই সহ্য করে সব অত্যাচার

ওই মুহুর্মুহু লেলিহানে দগ্ধ হতে হতে শরীর খোলে যুঁই

চেটেপুটে সবটুকু বন্দনা খেয়ে আগুনখেকোর সখ হয়-

তার আগুনে যুঁইকে রাঙিয়ে দেবে শিউলির মতো, আগুনবৃন্ত,

আগুনে স্নান করতে করতে যুঁই হয়ে ওঠে আরও সাদা, ধবধবে,

তাণ্ডব শুরু করে আগুনখেকো- যুঁই কেন শিউলি হয়ে ওঠেনা?

জ্বলতে থাকে আগুনখেকো-দাউদাউদাউ,

যুঁই-এর সুগন্ধে মোহিত হয় পৃত্থী

আগুনখেকো শিউলি খুঁজে চলে।

এই লেখাটি শেয়ার করুন