আহমেদ ছফার মৃত্যুবার্ষিকী

“যে শহরে বোবার মত ঝুলছে নীরবতা
বুকের নদীর ঢেউে জাগে মাছের মত কথা
কারা যেন সামনে দাড়ায় সোহাগ ভুলায় তারা
ছায়ার মত চমকে মিলায় ছায়ার শরীরেরা
কে আর বাজাতে পারে পাখি তোমার মত
কে আর লুকাতে পারে পাখি তোমার ক্ষত।”

মানবতাবাদী লেখক আহমেদ ছফার জন্ম ১৯৪৩ সালের ৩০ জুন চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার হাশিমপুরের গাছবাড়িয়া গ্রামে।
তিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর করে ষাটের দশক থেকে লেখালেখি শুরু করেন।

তিনি ছিলেন শোষিত মানুষের কন্ঠস্বর। গল্প, উপন্যাস, কবিতা প্রবন্ধ, অনুবাদ, ইতিহাস, ভ্রমণ কাহিনী মিলিয়ে তার ৩০ টির ও অধিক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।
তার প্রথম উপন্যাস ‘সূর্য তুমি সাথি’, বিখ্যাত উপন্যাস ‘ওঙ্কার’। ‘বুদ্ধিবৃত্তির নতুন বিন্যাস’ ও ‘বাঙালি মুসলমানের মন’ তাঁর আলোচিত প্রবন্ধগ্রন্থ। এ ছাড়া তার উল্লেখযোগ্য কবিতার বই ‘জল্লাদ সময়’, ‘একটি প্রবীণ বটের কাছে প্রার্থনা’, ‘লেনিন ঘুমোবে এবার’ ইত্যাদি।
এছাড়াও তিনি লিখেছেন ছোটগল্প গ্রন্থ ও অনুবাদ গ্রন্থ৷

প্রতিষ্ঠানবিরোধী এই লেখকের লেখায় মুক্তিকামী মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষা এবং সমাজের নানা অসঙ্গতি ও বৈষম্য ফুটে উঠেছে। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিভিন্ন পত্রিকায় নিয়মিত কলাম লিখেছেন।

২০০২ সালে সাহিত্যে অবদানের জন্য একুশে পদকে (মরণোত্তর) ভূষিত করা হয়।

আহমেদ ছফার প্রত্যেকটি উপন্যাসই ভাষিক সৌন্দর্য এবং রচনাশৈলীর অভিনবত্বে অনন্য।

২০০১ খ্রিষ্টাব্দের ২৮ শে জুলাই অসুস্থ অবস্থায় ঢাকা কমিউনিটি হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
মৃত্যুর পরে তাকে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে শায়িত করা হয়৷

বাংলা সাহিত্যের জনপ্রিয় এই লেখকের মৃত্যুবার্ষিকীতে ছাইলিপি জানায় বিনম্র শ্রদ্ধা।

 

ছাইলিপি ডেস্ক

এই লেখাটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *