ভেসে যায় ভিতর-বাহির

অনঞ্জন

সে ঠিক করল বৃষ্টি দেখবে, ভিজবেনা কিছুতেই,

বৃষ্টি এল, অরণ্যের মতো, দুকুল ছাপিয়ে-

আজই ধুয়ে নিয়ে যাবে সমস্ত পুরনো বিশ্বাস,

আকাশে তখন অনন্তের সব সঙ্গীত!

সে গলে পড়তে থাকে, তার জেদ তার যত অভিমান,

হাত বাড়ায়, একটু স্নিগ্ধ নেয় দুইকরতলে

তারপর  মেখে নেয় মুখে- স্নিগ্ধ সে আবেশ,

শ্রাবণ ঝরতে থাকে বুকের ভেতর- ঝরোঝর

ভরে দিয়ে প্রাণের মধ্যে প্রবল-শূন্য, সে ভিজে চলে,

অঘোরে বিরহ মেশে, বিরহে অঘোর,

ভেসে যায় ভিতর-বাহির!

এই লেখাটি শেয়ার করুন

সম্পাদকের কথা

লেখালিখি ও সৃজনশীল সাহিত্য রচনার চেষ্টা খুবই সহজাত এবং আবেগের দুর্নিবার আকর্ষণ নিজের গভীরে কাজ করে। পাশাপাশি সম্পাদনা ও প্রকাশনার জন্য বিশেষ তাগিদে অনুভব করি। সেই প্রেরণায় ছাইলিপির সম্পাদনার কাজে মনোনিবেশ এবং ছাইলিপির পথচলা। ছাইলিপিতে লিখেছেন, লিখছেন অনেকেই। তাদের প্রতি আমার অশেষ কৃতজ্ঞতা। এই ওয়েবসাইটের প্রতিটি লেখা মূল্যবান। সেই মূল্যবান লেখাকে সংরক্ষণ করতে লেখকদের কাছে আমরা দায়বদ্ধ। কোন লেখার মধ্যে বানান বিভ্রাট থাকলে সেটির জন্য আন্তরিক দুঃখ প্রকাশ করছি। ছাইলিপি সম্পর্কিত যে কোন ধরনের মতামত, সমালোচনা জানাতে পারেন আমাদেরকে । ছাইলিপির সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ ।