গল্প – হারু মাস্টার

গল্প - হারু মাস্টার

আরিফ জামান

-“ওওও…হারু মাস্টের, যাও কই?”
.
অন্যমনষ্ক হয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন হারুন সাহেব।। অনিচ্ছাসত্ত্বেও অত্যন্ত বিরক্ত হয়ে ঘুরে তাকালেন রাস্তার পাশের চায়ের দোকানের দিকে।
তাকানোর সাথে সাথেই হে হে করে হেসে উঠলেন এলাকার চেয়ারম্যান ইকরামুল সাহেব।

“মাস্টের” কথাটা শুনে মেজাজটাই খারাপ হয়ে গেলো হারুন সাহেবের। তার উপরে হারুন নাম এখন হয়ে গেছে, “হারু”।বাহ! সত্যিই অদ্ভূত।
.
– “কই যাও? আসো, এককাপ চা খেয়ে যাও”
চায়ের কাপে চুমুক দিতে দিতে বললেন চেয়ারম্যান।।
.
রাগে কিছু একটা বলতে গিয়েও থেমে গেলেন হারুন সাহেব।। দোকানের কাছে এসে বললেন-
– “এই তো চেয়ারম্যান সাহেব, সামনের দিকে যাচ্ছিলাম একটু”
.
চেয়ারম্যান সাহেবের ইশারায় হারুন সাহেব পাশের টুলে বসলেন।।
– “মাস্টের, করোনায় ইস্কুল বন্ধ হইছে প্রায় চাইর মাস, প্রাইভেট ও তো বন্ধ।। তা কিভাবে চলছে দিনকাল?”
কি বলবে হারুন সাহেব? বেসরকারি স্কুলে চাকুরী করে যা বেতন পান, তার একটি বড় অংশই তো ব্যাংকের লোনের কিস্তিতে কেটে নেয়।। বাকী যে টাকা হাতে পান, তাতে পরিবার নিয়ে তিনবেলা খেয়ে বেঁচে থাকাই কষ্টকর।। এসব কথা কাউকে বলাও যায় না।। তার উপরে ক’দিন পরেই কোরবানি।।
.
– “কি ব্যাপার, মনে হয় খুব চিন্তার মধ্যে আছো, মাস্টের?”
– “না, আলহামদুলিল্লাহ।। ভালো আছি।। আপনার শরীর ভালো আছে তো?”
– আর কইয়ো না। এই বয়সে কত্ত ঝামেলা। কয়দিন গেলো ত্রাণ দেওয়ার ঝামেলা। এহন আবার আইয়া পড়ছে কোরবানি।কাইলগো গরু কিইন্যা আনলাম ১,২০,০০০ টাহা দিয়া। চা খাওয়া শেষ করো তাড়াতাড়ি, গরু দেখবা না?
.
অনিচ্ছাসত্ত্বেও চা খাওয়া শেষে ইকরামুল সাহেবের সাথে হাঁটতে থাকে হারুন সাহেব। মনের মধ্যে বিশাল এক তোলপাড় শুরু হয়ে গেছে ইতিমধ্যে। বেসরকারি স্কুলে চাকুরির সুবাদে মাত্র ৪,০০০ টাকা ঈদ বোনাস পান হারুন সাহেব। ছোট বাচ্চার ঈদের পোশাক, বউয়ের সামান্য আবদার, বৃদ্ধ পিতা- মাতা, এদের জন্যই কিছু করা যাবে না এই সামান্য টাকায়। কোরবানি আসলে তাঁর জন্য নয়।
.
এই সব ভাবতে ভাবতেই চেয়ারম্যান সাহেবের বাড়ির দরজায় পৌঁছে বিভিন্ন রংয়ের জড়ি দিয়ে সাজানো গরুর দিকে নজর পড়লো হারুন সাহেবের।
– বাহ্, দারুন হয়েছে, চেয়ারম্যান সাহেব।
– হ, বাজারের সব চাইতে বড় গরুটিই কিনেছি।
– আচ্ছা, চেয়ারম্যান সাহেব, চলি।। আসসালামু আলাইকুম।।
নিজের মধ্যে চাপা একটা ক্ষোভ, লজ্জা, ঘৃণা নিয়ে চেয়ারম্যান সাহেবকে সালাম দিয়ে ফিরে চললেন হারুন সাহেব।
.
আজ হারুন সাহেব জীবন যুদ্ধে পরাজিত ‘হারু মাস্টের’, বাহ! সত্যিই দারুন নামকরণ!!!
আচ্ছা,
“শিক্ষকতা পেশা কি এমনই হয়?
সাধ থাকবে, কিন্তু সাধ্য নয়?”

 

শিক্ষক, ইন্দুরকানী মেহেউদ্দিন মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় ,

“বিনা অনুমতিতে এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। কেউ যদি অনুমতি ছাড়া লেখা কপি করে ফেসবুক কিংবা অন্য কোন প্লাটফর্মে প্রকাশ করেন, এবং সেই লেখা নিজের বলে চালিয়ে দেন তাহলে সেই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য থাকবে
ছাইলিপি ম্যাগাজিন।”

সম্পর্কিত বিভাগ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Facebook
WhatsApp
Telegram
''আপনার স্তনগুলো খুব সুন্দর!''

”আপনার স্তনগুলো খুব সুন্দর!”

ইন্টারনেট থেকে পাওয়া মায়ানগরীর রাস্তাতেই হেনস্থার শিকার ‘বিগ বস’ খ্যাত আয়েশা খান। সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে তুলে ধরলেন ভয়ংকর অভিজ্ঞতার কথা। তাও আবার একটি নয়, বেশ ...
অদৃষ্টের পরিহাস- শাহিনুর রহমান

অদৃষ্টের পরিহাস- শাহিনুর রহমান

শাহিনুর রহমান   মন্ডল পাড়ার মসজিদ হতে আযানের ধ্বনি কানে আসে নজরুল মুন্সীর। তিনি তখন কলতলায় নিম ডালের মেসওয়াক দিয়ে লালচে দাঁতের উপর সজোরে ঘোরাচ্ছেন। ...
জীবনানন্দ দাশ ও রবীন্দ্রনাথ এবং কলকাতা পুলিশের একটি তদন্ত

জীবনানন্দ দাশ ও রবীন্দ্রনাথ এবং কলকাতা পুলিশের একটি তদন্ত

 মিরাজুল  হক  লালবাজার। কলকাতা পুলিশের হেড কোয়াটার। একটি অভিযোগ জানিয়েছেন মনজুশ্রী দাশ। কবি জীবনানন্দ দাশের মেয়ে। সময়টা সেপ্টেম্বর , ১৯৮০। মনজুশ্রী দাশ মেচেদা থেকে লোকাল ...
২০২৩ সালে ঘটতে পারে যেসকল বিপর্যয়

২০২৩ সালে ঘটতে পারে যেসকল বিপর্যয়

কবিতা- নদী-ফকির

কবিতা- নদী-ফকির

 অনিরুদ্ধ সুব্রত    এতো যে সর্দি কাসির দোষ, তবু শেষ অবধি জলের ধারার পাশে এসে একচিলতে ঘর বেঁধে থিতু হলাম, কোনও রোগা নদীটিকে ভালবেসে দেখলাম ...
বঙ্গবন্ধু

বঙ্গবন্ধু

মোঃ খোর্জাতুল ইসলাম চৌধুরী। হে শেখ মুজিবুর রহমান বাঙ্গলায় আপনি রেখে গেছেন অবদান। আপনার ডাকে বাঙ্গলার মানুষ নিজেকে করে দিয়েছিল উজাড় তাইতো আপনি বঙ্গবন্ধু বাঙ্গলার। ...